জনদূর্ভোগ লাঘবে বীর মুক্তিযোদ্ধা মেয়র বদিউল আলম-৭ নং ওয়ার্ড, সীতাকুণ্ড পৌরসভা

সীতাকুণ্ড বার্তা প্রতিনিধিঃ-
 
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের গৃহিতো বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের ( এম.জি.এস.পি,ADP, IUIDP)কাজের অগ্রগতি ও চলমান বিষয় নিয়ে সীতাকুণ্ড বার্তার বিশেষ প্রতিবেদন
“উন্নয়নে পৌরসভা “ও “উন্নয়নে ইউনিয়ন পরিষদ”।
 
বর্তমান সরকারের নির্বাচিতো সীতাকুণ্ডের পৌর মেয়র ও ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ কি কি উন্নয়ন কাজ করেছেন এবং কি কি কাজ চলমান,প্রকৃতো বাজেট কত? এসব জানা জনগনের নৈতিক দায়ীত্ব।
আমরা সেই সব তথ্য আপনাদের জ্ঞাতার্থে তুলে ধরার ক্ষুদ্র চেষ্টা করেছি
 
তারই ধারাবাহিকতায় আজ ৭ম পর্ব “উন্নয়নে সীতাকুণ্ড পৌরসভা মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলম” ৭ নং ওয়ার্ড

২০১৫ সালে বর্তমান মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব বদিউল আলম দায়ীত্ব নেওয়ার পর থেকে আজ পর্যন্ত(২০২০) অত্র পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডে এমজিএসপি,এডিপি ও আইইউআইডিপি প্রকল্পের আওতায় মোট প্রায় ৩কেটি ৫০ লক্ষ টাকার উন্নয়ন করেছেন এবং কিছু চলমান উন্নয়ন কাজ বাকি রয়েছে।

এ ব্যাপারে মেয়র বদিউল আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি দায়ীত্ব নেওয়ার পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ২০২১ চ্যালেঞ্জ বাস্তবায়িত করার লক্ষে পৌরসভার যে সকল কাজ খুবই প্রয়োজন এবং দ্রুত করতে হবে সেসব উন্নয়ন কাজে আগে হাত দেই।তারই ধারাবাহিকতায় প্রতিটি ওয়ার্ড কাউন্সিলর এর চাহিদা মত তাদের ওয়ার্ডের উন্নয়নগুলি দ্রুত করার চেষ্টা করেছি। ৯০% কাজ ইনশাআল্লাহ শেষ করতে পেরেছি আরও কিছু চলমান আছে।আমাদের পৌর ইঞ্জিনিয়ার এর কাছে সব তথ্য আছে। আপনারা জনগনের কাছে সঠিক তথ্য তুলে ধরবেন বলে আমি আশা করি এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ করবেন।

উক্ত ৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হারাধন চৌধুরী বাবু বলেন আমার ওয়ার্ডের অনেক উন্নয়ন হয়েছে আরও কাজ বাকি রয়েছে।আমার এলাকার চাহিদামত উন্নয়ন করতে চেষ্টা করছি। মেয়র মহদয় উন্নয়ন কাজে বেশ আন্তরিক তাই আমাদেরও কাজ করতে কষ্ট হয়নি।আমি ২০১৫ সালে পুনরায় নির্বাচিতো হয়ে দায়ীত্ব নেওয়ার পর থেকে আমার ৭ নং ওয়ার্ডে এ পর্যন্ত প্রায় ৩ কোটি ৫০ লক্ষ টাকার উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নিয়েছি যা আগের সময়ের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

মেয়র ও কাউন্সিলর এর কথার সত্যতা যাচাই করতে আমরা ইঞ্জিনিয়ার এর কাছ থেকে রেকর্ডকৃত তথ্য সংগ্রহ এবং সরেজমিন তদারকি করি।

রেকর্ড অনুযায়ী ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে এমজিএসপির আওতায় পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের উন্নয়ন কাজ সমূহ

১/ ১২,২৯,০৯৩.৬৩ টাকায় গোলাবাড়িয়া সি রোডের পাশে আর সি সি ড্রেন নির্মাণ।

২০১৮-১৯ অর্থ বছর

২/ ২৯,০৯,৮৩১.৮৭ টাকায় গোলাবাড়িয়া সি সড়ক আর সি সি দ্বারা উন্নয়ন

৩/ ১২,৪১,১৮৩.৯০ টাকায় গোলাবাড়িয়া সি সড়কে আর সি সি ড্রেন নির্মাণ।

৪/ ৭,৮৬,৩৯৮ টাকায় আমিরাবাদ কবরস্থান সড়ক সি সি দ্বারা উন্নয়ন।

৫/ ১১,৭৫,৮৫২ টাকায় বড়ুয়া বাড়ি হতে রামহরি মুন্সি সড়ক পর্যন্ত ড্রেন নির্মাণ।

৬/ ৬,০০,০০০ টাকায় আমির হোসেন মিয়াজী সংযোগ সড়কে ব্রীক সলিং দ্বারা উন্নয়ন।

২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরে এডিপিADP আওতায়

৭/ ৭,৪৮,৫৫৪ টাকায় আলী হোসেন সড়ক সি সি ও ব্রীক ড্রেন দ্বারা উন্নয়ন।

৮/ ৩,৩৮,২৯৯ টাকায় নামার বাজার রোডের পাশে ব্রীক ড্রেন নির্মান

৯/ ৩,৩৮,২৬১ টাকায় জরুরীভাবে গোলাবাড়িয়া সিরোড ও নামার বাজার ব্রীজের নিচে আর সি সি দ্বারা মেরামত।

২০১৬-১৭ ও ২০১৮-১৯ IUIDP এর আওতায়

১০/ ৫০,৬০,২৪৩ টাকায় সমদ আলী মিয়াজী সড়ক আর সি সি দ্বারা উন্নয়ন

১১/ ৭৮,২৫,৪৪০ টাকায় খলিফা মসজিদ সড়ক ও হাবিব উল্লাহ সড়ক আর সি সি দ্বারা উন্নয়ন ও ব্রীক ড্রেন নির্মন।

১৩/ ৮,০০,০০০ টাকায় আমিরাবাদ ও পেশকার পাড়া সংযোগ সড়ক নির্মাণ।

উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে মেয়র বদিউল আলম ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাসুদুর রহমান জনগনকে তথ্য দিয়ে সহায়তা করার অনুরোধ জানান এবং এলাকার উন্নয়নে সহযোগীতা ও দোয়া চান।

বিস্তারিত দেখুন ভিডিওতেঃ

Written by Mohammad Ismail

ওয়ার্ডপ্রেস ডেভলপার। গ্রাফিক্স ডিজাইনার।

Leave a comment